FashionHomeNews

আমার নামটাই ভুলে গিয়েছে সবাই মায়িহা আহমেদ অদিতি

শিশু শিল্পী অদিতি বড় মাপের অভিনয় শিল্পী হতে চায় ২০টির বেশি বিজ্ঞাপন, ১৫টির বেশি নাটকে অভিনয় করেছে মায়িহা আহমেদ অদিতি। সম্প্রতি মুক্তি পেলো তার বঙ্গমাতা। ছোটবেলার চরিত্রে অভিনয় করেছে অদিতি। ডিরেক্টর গৌতম কুড়ি। তার বর্তমান অবস্থান নিয়ে কথা হয়। সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন আমাদের প্রতিনিধি মাহমুদ পারভেজ।

 

শুরুটা কিভাবে ?

মায়িহা আহমেদ অদিতিঃ বাংলাদেশ শিশু একাডেমিতে নাট্যকলায় প্রথম বর্ষে পড়াশোনা করে। বর্তমানে দীপ্ত টেলিভিশন মান অভিমান নাটক রানুর মেয়ে সততা চরিত্রের অভিনয় করছে অদিতি।

এখন ব্যস্ততা কী নিয়ে ?

মায়িহা আহমেদ অদিতি: কিছুদিন আগে হয়ে গেলো নাটক মান অভিমান শুটিং ২ দিন আগে শেষ করলাম । এখন বেশীর ভাগ নাটক করা হচ্ছে, এছাড়াও মন্ত্রণালয়ের অনেক ডকুমেন্টারি কাজ করছি।

 আচ্ছা আমরা জানতে পারলাম তুমি কবিতা আবৃতিতে অনেকগুলো পুরস্কার পেয়েছো ?

মায়িহা আহমেদ অদিতি: আবৃত্তি করা আমার খুবই পছন্দ আমি প্রথম যখন তিন বছর তখন আবৃত্তিতে প্রথম পুরস্কার পেয়েছি।

কিছুদিন আগে একটি থাম্বেল দেখলাম কোঁকড়া চুল ওই নাটকে তোমার চরিত্র কী ?

মায়িহা আহমেদ অদিতি: এই গল্পটি লিখেছে রণবীর কুমার। অসাধারণ একটি গল্পে কাজ করলাম। আমার ভীষণ ভালো লেগেছে। গল্পটি খুব মজার একটি গল্প। একটি পরিবারের সবার চুল কোঁকড়া থাকে। বাবা-মা দাদা ছেলে সহ সবার। কিন্তু আমার চুল লম্বা ছিল এটা নিয়েই মূলত গল্পের কাহিনী বাকিটা আপনারা দেখলে বুঝতে পারবেন।।

স্কুলের বন্ধুরা কী নামে ডাকে ?

মায়িহা আহমেদ অদিতি: বর্তমানে দীপ্ত টিভিতে ধারাবাহিক নাটক মান-অভিমান চলতেছে ওখানে আমার চরিত্রটি সততা তাই এখন সবাই আমাকে সততা বলেই ডাকে আমার নামটাই ভুলে গিয়েছে সবাই।।

পড়াশোনার পাশাপাশি ?

মায়িহা আহমেদ অদিতি: অভিনয়, নাচ, কবিতা আবৃত্তি, গান এগুলো নিয়েই ব্যস্ত। অবসর সময় খুব কম পাই তবে যখনই সময় পাই আমি ফ্যাশনের যে কার্টুন আছে তারপর বিভিন্ন রান্না ডিজাইন এগুলো দেখতে বেশি পছন্দ করি।।

পছন্দের খাবার কী কী ?

মায়িহা আহমেদ অদিতি: পছন্দের খাবার বলতে ডাল, ভাত, মাছ ভাজা, ডিম ভাজা, গরুর মাংস এগুলোই বেশি পছন্দ করি। এ ছাড়া বিরিয়ানি, চকোলেট, আইসক্রিম তো আছেই।

একদিন শুটিংয়ে গিয়ে দেখলে, কেউ তোমার সঙ্গে কথা বলছেনা ।

মায়িহা আহমেদ অদিতি:  এরকম তো হওয়ার কথা না, কারণ সবাই আমাকে এত ভালবাসে কেউ আমার সাথে কথা না বলে থাকতেই পারবে না। তবে যদি এরকম হয় তাহলে ভাববো সবাই আমার সাথে মজা করছে। তখন আমিও বোবা হয়ে যাব।

ইচ্ছাপূরণ পরি এসে তোমার জন্মদিনে উপহার দিতে চায়, কী চাইবে ?

মায়িহা আহমেদ অদিতি: আমি যাতে একজন ভালো অভিনেত্রী হতে পারি , আমার অভিনয় দেখে সবাই যাতে বলে না এটা অভিনয় নয় এই চরিত্রের জন্যই অদিতি। সব চরিত্রের সাথে যাতে নিজেকে ধারন করতে পারি।

বড় হয়ে কী হবে ঠিক করেছ ?

মায়িহা আহমেদ অদিতি: বড় হয়ে ভালো একজন অভিনয় শিল্পী হতে চাই। পাশাপাশি কিছু সামাজিক কাজ করতে চাই। একজন ভালো মানুষ হলেই বাঁচি।

আচ্ছা তুমি নাকি আবৃত্তিতে অনেকগুলো পুরস্কার পেয়েছ ?

মায়িহা আহমেদ অদিতি:  প্রথম পুরস্কার আবৃত্তিতে আমি যখন তিন বছরের তখন পেয়েছি বাংলা একাডেমী থেকে। এরপর পুরস্কার পেলাম দীপু মনির হাত থেকে যেখানে আমি দ্বিতীয় হয়েছিলাম সারা বাংলাদেশ থেকে। এটা ছিল মন্ত্রণালয় থেকে একটা জাতীয় পুরস্কার। গত বছর এটিএন বাংলায় ৭ই মার্চ উপলক্ষে সারা বাংলাদেশ থেকে আবৃত্তির শিশুরা আসে সেই শিশুদের মধ্যে আমি দ্বিতীয় হয়েছিলাম সেরা ১০ এ দ্বিতীয় হয়েছিলাম সেখানে আমি চার বছরের স্কলারশিপ পেয়েছি ক্যাম্বিয়ান স্কুল এন্ড কলেজ থেকে। এছাড়া এটিএন বাংলা বিটিভিতে আমার অনেক আবৃত্তি আছে

You may also like

Fashion

দ্যা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিয়েটিভ আর্ট অ্যাওয়ার্ড -২০২৩’ পুরস্কারে ভূষিত হলেন টুম্পা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিএএলডিআরসি লিঙ্গুইস্টিকস ইউনিট আয়োজিত ‘দ্যা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিয়েটিভ আর্ট অ্যাওয়ার্ড -২০২৩’ পুরস্কারে ...

Leave a reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More in Fashion